বাংলাদেশীদের পেওনিয়ার মাষ্টারকার্ড পেতে গুনতে হবে ১০০$।

অনলাইনে যারা কাজ করেন  তাদেরকাছে পেওনিয়ার একটি অতি পরিচিত নাম।
পেওনিয়ার মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে আপনি চাইলে অনলাইনে কেনাকাটা, ফ্রিলেন্সার সাইটগুলো থেকে ডলার উঠানো, বিভিন্ন সোশাল মিডিয়াতে আপনার পন্যের প্রমোট দিতে পারবেন।
পেওনিয়ার কার্ড
পেওনিয়ার মাষ্টারকার্ড 
অতীতে বাংলাদেশী পেওনিয়ার গ্রাহকরা চাইলে অতী সহজেই কার্ডটির জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারতো এবং ফ্রিতেই এটা পেয়ে যেতো যা আবেদনের ১ মাসের মধ্যে ডাকযোগে কার্ড এসে উপস্থিত হতো ঘরের দরজায়।

তবে এখন থেকে আর এত সহজে পেওনিয়ার কার্ড পাবেননা বাংলাদেশী গ্রাহকরা।
পেওনিয়ার কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে আরো জানান, স্পামিং এবং কার্ড অর্ডার করে নিয়ম অনুযায়ী কার্ড এক্টিব না করা ইত্যাদি কারনে বাংলাদেশে ফ্রি তে কার্ড প্রদান বন্ধ করেছে পেওনিয়ার।
তবে নতুন নিয়ম অনুযায়ী পেওনিয়ার কার্ড পেতে সর্বোনিম্ন ১০০$ নিজ একাউন্টে লোড করে তারপর কার্ডের জন্য আবেদন করতে হবে বাংলাদেশী গ্রাহকদের এবং তাহলেই শুধুমাত্র তারা কার্ডটি পাবে।
এর আগে ঠিক একই কারনে ভারতে ফ্রিতে মাস্টারকার্ড প্রদান বন্ধ করে পেওনিয়ার।

উল্লেখ্য, অতীতে কিছু অসাধু লোক পেওনিয়ার থেকে ফ্রিতে মাস্টারকার্ড নিতো এবং পরবর্তীতে সেটা চওড়া দামে বিক্রি করতো। এবং কিছু লোক কৌতূহল বশত কার্ড নিতো কিন্তু সেটা এক্টিব না করেই বিছানার নিচে কিংবা মানিব্যাগে রেখে দিতো।

তবে নতুন নিয়মের ফলে সেটি শূন্যের কোঠায় নেমে আসবে।
বলে রাখা ভালো পেওনিয়ার একটি আন্তর্জাতিক মাষ্টারকার্ড সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান যারা সারা বিশ্বে ডুয়েল কারেন্সি মাস্টারকার্ড প্রদান করে থাকে যার বাৎসরিক সার্ভিস চার্জ ১০০$।

সুতরাং আপনি যদি চান আপনার একটি মাষ্টারকার্ড থাকুক তবে আজই আবেদন করতে পারেন পেওনিয়ার মাষ্টারকার্ডের জন্য।

Comments